ব্যাংক থেকে লোন নিবেন কিভাবে?

তখনই আপনি খুব সহজেই লোন পেতে পারেন যখন ব্যাংক লোন পাওয়ার উপায় সম্পর্কে আপনি পরিপূর্ণভাবে জানবেন। নিয়মিত এই ব্যাপারে অনেক প্রশ্ন থাকে। চলুন লোন নিবো কিভাবে, নিম্নে ব্যাংক থেকে লোন তোলার নিয়মগুলি।

আপনি কি উদ্দেশ্যে লোন নিতে চাচ্ছেন প্রথম ধাপে তা ঠিক করুন৷ নিচে কিছু সাধারণ লোন দেওয়া হলোঃ-

অটো লোন : গাড়ি কেনার জন্য সাধারণত এই লোনটি ব্যবহৃত হয়৷

হোম লোন : বাড়ি কেনার জন্য আপনি চাইলে এই লোনের সাহায্য নিতে পারেন।

পার্সোনাল লোন : যে কোণ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করার জন্য নেওয়া যায়। পার্সোনাল লোন হতে পারে আপনার যেকোনো উদ্দেশ্যে কাজে লাগা লোন।

বিজনেস লোন : এটি সাধারণত ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য দেওয়া হয়ে থাকে।

এডুকেশন লোন বা স্টুডেন্ট লোন : পড়াশুনার জন্য যদি কারো লোন লাগে সে এই পদ্ধতির সাহায্য নিতে পারে।

প্রবাসী লোন : বিদেশে যাওয়ার জন্য অনেকেরই অর্থের প্রয়োজন পড়ে। এক্ষেত্রে পাশে আছে প্রবাসী লোন।

কৃষি ঋণ : যারা কৃষিকাজ করেন এবং এক্ষেত্রে লোনের প্রয়োজন হয় তারা এটি ব্যবহার করতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ  জেনেসিস ক্রেডিট কার্ড কি? কিভাবে পাবেন - Genesis Credit Card – Genesis Financial Solutions

উপরিউক্ত লোনের ক্যাটাগরি থেকে আপনাকে আপনার প্রয়োজন অনুসারে পছন্দের লোনটি বেছে নিতে হবে। লোনের ধরণ নির্বাচন করতে পারলেই লোন নিতে পারাটা খুবই সহজ হয়ে যাবে। অন্যদিকে লোনের পাওয়ার খরচও অনেক কমে যেতে পারে।

কোন প্রতিষ্ঠান থেকে লোন নিবেন?

কোন ব্যাংক লোন দেয় সেটি সম্পর্কে ধারণা নিয়ে তা আপনাকে আগে থেকেই নির্বাচন করতে হবে। মনে রাখবেন, একটি ব্যাংক সব ধরণের লোন প্রদান করে না। করলেও তা সহজ শর্তে লোন পাওয়া গ্রাহকের জন্য সহজ হয়ে উঠে না। যেমন কিছু ব্যাংক বা নন ব্যাংক ফাইন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউট ব্যবসায়ের জন্য সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করলেও কিছু ব্যাংক পার্সোনাল লোন বা স্যালারি লোনের জন্য সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করে থাকে।

লোন নেয়ার জন্য অধিকাংশ ক্ষেত্রে ব্যাংকই পজেটিভ থাকে এবং ভালো ব্যবস্থা করে দেয়। এই কারণে সব সময় চেষ্টা করবেন ব্যাংক থেকে লোন নেয়ার। এক্ষেত্রে বিভিন্ন ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান সুদের হার এবং পোর্সসিং ফি সহ আনুষঙ্গিক খরচাদি কত হবে তা জেনে নিয়েই তবে লোন নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিবেন।

লোনের জন্য আবেদন আবেদন করার সময় কি কি লাগবে?

লোনের জন্য আবেদন আবেদন করার সময় যে সকল ডকুমেন্ট ছাড়া কাজ হয় না সেসব হলোঃ-

  • আবেদন ফর্ম যথাযথভাবে পূরণ করে তাতে সাইন করা
  • আবেদনকারীর ছবি যুক্ত করা
  • জাতীয় পরিচয় পত্র, অফিস আইডি, ভিজিটিং কার্ড, স্যালারি সার্টিফিকেট / পে স্লিপ সাথে রাখা
  • টি অ্যান্ড টি / মোবাইল ফোন / গ্যাস বিল / ইউটিলিটি বিল ইত্যাদির বিল কপি এই কাজের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া
  • চেকের সঠিক পেইজ
  • বৈধ পাসপোর্ট / ড্রাইভিং লাইসেন্সের অনুলিপি / অন্যান্য কাগজপত্র
  • নূন্যতম ৬ মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট সাথে রাখা
  • অন্যান্য ব্যাংক ঋণ অনুমোদনের চিঠি অর্থ্যাৎ স্যাংশন লেটার কালেক্ট করা
  • অন্যান্য আয়ের প্রুফ ডকুমেন্টস, এবং অংশীদারি চুক্তির নিবন্ধ সাথে রাখা
  • ভাড়া চুক্তি, অন্যান্য আয়ের পরিদর্শন প্রতিবেদন, অন্যান্য নথি, গ্যারান্টারের ফটোগ্রাফ, জাতীয় পরিচয়পত্র, অফিস আইডি, ভিজিটিং কার্ড সাথে রাখা
আরও পড়ুনঃ  সেরা ৪টি ডেভিট/ক্রেডিট কার্ড | The 4 Best Prepaid Visa And MasterCard Card

2 thoughts on “ব্যাংক থেকে লোন নিবেন কিভাবে?”

Leave a Comment

x