ব্লকচেইন মার্কেটিং, ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং বিটকয়েন|

Please log in or register to like posts.
পোস্ট

আপনি কি ব্লকচেইন মার্কেটিং, ডিজিটাল ক্রিপ্টোকারেন্সিস এবং বিটকয়েনের মতো শব্দগুলি শুনেছেন? এসব কারেন্সি মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে কতটা ভূমিকা রাখে সে বিষয়ে আপনার কোনও ধারণা আছে? সমস্যা নেই; এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাকে সকল বিষয়ে বিস্তারিত যানানোর এবং বুঝানোর চেষ্টা করবো।

ব্লকেচেইন মার্কেটিং

যেহেতু দুনিয়া ডিজিটাল যুগে পা রেখেছে, তাই আমরা দেখতেছি যে পুরো মার্কেটিং গত দুই দশকে তার রূপ পরিবর্তন করছে।একটা সময় ব্যবসার মাধ্যমে গ্রাহকদের সাথে ডিল করতে হতো সরাসরি, তাদের কোথা থেকে খুজতে হবে এবং কীভাবে তাদের সংখ্যা বাড়াতে হবে তা সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়টি ছিল প্র‍্যাক্টিকেলি। তবে এখন দুনিয়া অনেক এগিয়ে গেছে, এবং মার্কেটিং সিস্টেম এবং ই-কমার্স গ্রাহকদের হাতে আরও বেশি সুযোগ করে দিয়েছে। অর্থাৎ আপনি আপনার ব্র্যান্ড বা প্রোডাক্ট সেল দিচ্ছেন ইন্টারনেটের মাধ্যমে। আপনার ব্যবসায় এখন ইন্টারনেটভিত্তিক হয়ে গেছে।

কিন্ত সমস্যা হলো আপনার বিপুল সংখ্যক গ্রাহক বিপজ্জনক এবং পেমেন্ট করতে ভুগান্তি পোহাচ্ছে । কারণ আপনার গ্রাহক পেমেন্ট করতে গিয়ে হ্যাকারদের হাতে প্রতারিত হচ্ছে।

এটি ব্যবসায়ীদের জন্য একটি অত্যন্ত বড়ধরনের। এসকল ডিজিটাল ব্যবসাগুলির মাধ্যমে আমরা ইতিমধ্যে গ্রাহকদের বিশ্বাস অর্জনে অনেক টা এগিয়ে গিয়েছি, এখন তাদের ডাটাবেসের সুরক্ষার সাথে লড়াই করতে হচ্ছে।

ব্যবসায়ীদের জন্য এমন একটি উপায় রয়েছে যা তাদের ডেটা সুরক্ষিত করতে পারে এবং নিরাপদে অনলাইনে লেনদেন করতে পারে। এটি হচ্ছে ব্লকচেইন এনক্রিপশন।

আপনি হয়ত ক্রিপ্টোকারেন্সি বা বিটকয়েনের সাথে ব্লকচেইন এর নাম শুনেছেন।কিন্তু এই কারেন্সি কীভাবে লেনদেন হয় বা অন্যান্য কারেন্সির সাথে কি ধরনের পার্থক্য রয়েছে তা হয়তো আপনি ক্লিয়ারলি যানেন না।

তো চলুন আমরা ব্লকচেইন মার্কেটিং ডিজিটাল ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং বিটকয়েন সম্পর্কিত তথ্যের উপর কিছু আলোচনা করি।

ক্রিপ্টোকারেন্সি

নামটি এনক্রিপশন শব্দ থেকে এসেছে যার অর্থ এমন সিস্টেম বা পদ্ধতি যা নেটওয়ার্কের সুরক্ষা নিশ্চিত করে থাকে।

এটি ভার্চুয়াল মুদ্রার সর্বশেষ মুদ্রা বা ডিজিটাল কারেন্সি বলতে পারেন। যা কিনা ইন্টারনেটের মাধ্যমে লেনদেন হয়।

 

ক্রিপ্টোগ্রাফি নিরাপদ লেনদেন নিশ্চিত করে থাকে। কারণ এটি একবার ব্যবহার করার পরে এটি আবার ব্যবহার করা প্রায় অসম্ভব।

আমরা ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলিকে এমন একটি সিস্টেম হিসাবে বুঝতে পারি যা ভার্চুয়াল মুদ্রা বা টোকেন আকারে নিরাপদ অনলাইন লেনদেন সক্ষম করে।

ক্রিপ্টোকারেন্সির অনন্য বৈশিষ্ট্ হলো কোনও কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা বিশ্বের কোন কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণ নেই। এটি বিকেন্দ্রীভূত এবং স্বচ্ছ মুদ্রা যা কোনও সরকারী বা মালিকানা নেই।

ব্যক্তিগত বা পাবলিক পাসকোডের মাধ্যমে সরাসরি দুজনের মধ্যে ক্রিপ্টোকারেন্সির লেনদেন হয়ে থাকে। ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহারের আরেকটি বড় সুবিধা হলো এর লেনদেনের ফি খুবই কম।

বিটকয়েন ( Bitcoin )

বিটকয়েন নামটি ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে আবিষ্কার হয়েছিল।

বিটকয়েন আসলে ইন্টারনেট ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলির মধ্যে একটি। অনলাইন লেনদেনের জন্য বিটকয়েন সামান্য কিছু ফি কেটে থাকে।সেটা খুবই ন্যূনতম। যেহেতু এটি একটি ক্রিপ্টোকারেন্সি, এটি একটি বিকেন্দ্রীভূত ডিজিটাল মুদ্রা যার কোনও মালিক বা কর্তৃপক্ষ নেই।

বিটকয়েনের কোনও অস্তিত্ব নেই।

সকল ধরণের ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলির মধ্যে বিটকয়েন হলো বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিপ্টোকারেন্সি। বিটকয়েন পিয়ার থেকে পিয়ার বিটকয়েন নেটওয়ার্কের মাধ্যমে লেনদেন করা হয়। বিটকয়েন হচ্ছে উন্মুক্ত মুদ্রা এবং এটির উপর কারো মালিকানা নেই। বিটকয়েনের প্রতিটি লেনদেন একটি ব্লকচেইন হিসাবে রেকর্ড করা হয়। সমস্ত লেনদেন পাবলিকলি ফ্রেশভাবে হয়ে থাকে।

ব্লকচেইন এবং ক্রিপ্টোকারেন্সি’র সম্পর্ক

যখন বিটকয়েন বা ক্রিপ্টোকারেন্সি অর্থে লেনদেন করা হয়, তখন লেনদেনটি তত্ক্ষণাত নেটওয়ার্কে উপস্থিত প্রত্যেকেই দেখতে পারে। একবার লেনদেনের সম্পুর্ন কনফার্ম হয়ে গেলে, আর ফেরানো পসিবল না। কনফার্ম হওয়ার পরে, এটি ব্লকচেইনের একটি অংশে পরিণত হয় যা কিনা পুরো নেটওয়ার্ক জুড়ে স্বচ্ছ।

অতএব আপনি বলতে পারেন যে ব্লকচেইন এমন একটি প্রযুক্তি যার মাধ্যমে ক্রিপ্টোকারেন্সির বিনিময় এবং নিশ্চিত করা হয়।

ব্লকচেইন এবং ক্রিপ্টোকারেন্সি

ব্লকচেইন হলো ডাটাবেস প্রযুক্তির নাম যা কিনা কেন্দ্রীয় কোন কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণ ছাড়াই লেনদেন পরিচালনা করে থাকে। ব্লকচেইন প্রযুক্তিকে টেম্পারিং প্রযুক্তি বলা হয়। কারণ যাচাইকরণ এবং নিশ্চিতকরণ সিস্টেম কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা সরকারী কর্তৃপক্ষের দ্বারা না হয়ে, ইন্টারনেট অ্যালগরিদমের মাধ্যমে পরিচালিত হয়।

এগুলি ছাড়াও, ব্লকচেইন প্রযুক্তি ক্লিক জালিয়াতি বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে কারণ এই কারেন্সিগুলো বিশ্বাসযোগ্য ডিজিটাল নেটওয়ার্ক তৈরি করে।

ব্লকচেইন, ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং বিটকয়েন অন্যান্য কারেন্সির চেয়ে অত্যন্ত জনপ্রিয়। ব্লকচেইন প্রযুক্তি এবং ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটিং শিল্পের গতি অর্জন করে নিয়েছে। কারণ এই কারেন্সিগুলো বেস্ট এবং সবচেয়ে নিরাপদ সুবিধা দিয়ে থাকে।

Reactions

0
0
0
1
0
0
Already reacted for this post.

কেউ পছন্দ করেনি!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *