Dark Mode
  • Sunday, 13 June 2021
Onpage SEO গুগল বা অন্যান সার্চ ইঞ্জিনে র‍্যাংক করুন আপনার ওয়েবসাইট| সেরা এসইও টিপস

Onpage SEO গুগল বা অন্যান সার্চ ইঞ্জিনে র‍্যাংক করুন আপনার ওয়েবসাইট| সেরা এসইও টিপস

আমরা যারা ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করি তারা খুব ভালভাবেই এসইও (SEO) বা Search Engine Optimization শব্দের সাথে পরিচিত। এসইও হল গুগলে কোনও ওয়েবসাইট বা ব্লগ সাইটের র‌্যাঙ্কিংয়ের প্রক্রিয়া। মনে করুন আপনার একটি ওয়েবসাইট আছে আপনার ওয়েবসাইটে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিভিন্ন আর্টিকেল আছে এখন যদি কেউ গুগলে কোনও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত আর্টিকেল অনুসন্ধান বা সার্চ করে এবং যদি আপনার ওয়েবসাইটটিতে সেই কিওয়ার্ডের সাথে কোনও পোস্টের মিল থাকে তবে আপনার ওয়েবসাইটটি  গুগলের প্রথম পৃষ্ঠায় দেখাবে

আজ আমি এই আর্টিকেলে অনপেজ এসইও সম্পর্কে লিখবো। যারা ওয়েব সাইট এবং ব্লগ সাইট পরিচালনা করেন তাদের জন্য অনপেজ এসইও একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনি যদি এসইও দিয়ে কাজ করতে চান তবে সবার আগে আপনার সার্চ ইঞ্জিন এবং সার্চের ফলাফল সম্পর্কে জানতে হবে।

সার্চ ইঞ্জিন: সার্চ ইঞ্জিন ইন্টারনেট বিশ্বে ছবি, ভিডিও আর্টিক, চিত্র বা যেকোন তথ্য সন্ধানের একটি মাধ্যম। সার্চ ইঞ্জিন সাধারণত ইন্টারনেটে সকল ওয়েবসাইটের তথ্য ব্যাকাপ করে রাখে এবং ব্যবহারকারীদের কাছে প্রদর্শন করে। শীর্ষ চারটি ইঞ্জিন হলো গুগল, ইয়াহু, বিং এবং বাইদু।

সার্চ রেজাল্ট: মনে করুন আপনি একটি কীওয়ার্ডটি দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক খবরের জন্য গুগল সার্চ করেছেন, আপনি দেখতে পাবেন এই নামে অনেকগুলি ওয়েবসাইট রয়েছে, সাধারণত এটিকেই বলা হয় সার্চ রেজাল্ট।

এসইও এর কাজ সাধারণত তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে।

যেমন:

  • অফ পেজ এসইও Offpage SEO
  • অনপেজ এসইও Onpage SEO
  • TECHNICAL SEO

আমি আজ আপনার সাথে অনপেজ এসইও নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি।

অনপেজ এসইও মানে ওয়েবসাইটের ভিতরে যে সমস্ত কাজ করা হয়

যেমন : Meta descriptionsTitles of imagesproper use of stands, captions and internal links etc.

কীওয়ার্ড রিসার্চ: কিওয়ার্ড মূলত একটি শব্দ।  আপনি যদি কোনও বিষয় সম্পর্কে কিছু জানতে চান, তবে সেই বিষয়ের প্রথম কয়েকটি লাইন গুগলে সার্চ করলেই পাওয়া যাবে, অর্থ্যাৎ   এটিকেই সাধারণত কীওয়ার্ড বলা হয়। কিওয়ার্ড রিসার্চ SEO এর একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এবং কীওয়ার্ড রিসার্চের জন্য  জন্য গুগলে অনেকগুলি ফ্রি টুলস পেয়ে যাবেন।

কীওয়ার্ড রিসার্চ বা বাছাই করার সময় কয়েকটি বিষয় মনে রাখতে হবে:

1. Search volume 

2. Country targeting 

3. Keyworld Difficulty etc.

মেটা ডিস্ক্রিপসন ট্যাগ: মেটা ডিস্ক্রিপসন আসলে একটি ওয়েবপৃষ্ঠার সংক্ষিপ্ত এইচটিএমএল ট্যাগ। আপনি যখন সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে সার্চ করবেন তখন এটি দেখা যাবে এবং এই সংক্ষিপ্ত ডিস্ক্রিপসন দেখে দর্শকরা বুঝতে পারবেন যে এই ওয়েবসাইটটি কী ধরণের আর্টিকেল বা কোন ক্যাটাগরির পোস্ট দিচ্ছে।

মেটা টাইটেল ট্যাগ: মেটা টাইটেল ট্যাগ আসলে কোনও ওয়েব পেজের একটি HTML ট্যাগ।  যখন কোনও কিছু লিখে সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে সার্চ করা হয় তখন যে শিরোনাম টা দেখা যায় তাকেই টাইটেল ট্যাগ বলা হয়। আমি মনে করি আপনার ব্র্যান্ড কীওয়ার্ড হিসেবে মেটা টাইটেল ট্যাগে যুক্ত করা উচিত।  এর কারন হলো আপনি যদি এই পেজগুলি গুগল সহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনগুলিতে দিতে চান তবে রোবট সেই ওয়েব পেজ গুলোতেই যেতে সক্ষমতা পাবে। আরেকটি বিষয় মনে রাখবেন তা হল এসইও ফ্রেন্ডলি URL তৈরী!

এসইও ফ্রেন্ডলি ইউআরএল মানে হচ্ছে

১. ইউআরএলে প্রশ্নবোধক চিহ্ন (?), স্টার চিহ্ন (*) ইত্যাদি থাকবে না

২. আপনার ইউআরএল অবশ্যই সংক্ষিপ্ত হতে হবে।

ওয়েবসাইটের পোস্টের ইউআরএল  মূল ডোমেন + পোস্টের টাইটেল অনুযায়ী দিতে হবে।

সাইটম্যাপ: গুগলের নির্দিষ্ট তথ্য সরবরাহের জন্য পোস্টের জন্য একটি সাইটম্যাপ তৈরি করতে হবে।

ইমেজের নাম এবং সঠিক সাইজ: ওয়েবসাইটের ইমেজগুলো পোস্টের টাইটেল অনুযায়ী রিনেম করতে হবে এবং  সঠিক সাইজ অনুযায়ী আপ্লোড করতে হবে আর অবশ্যই ইমেজের কোয়ালিটি যেন এইচডি বা হাই রেজুলেশন হয়।

ফ্যাভিকন: ওয়েবসাইটটির জন্য একটি সুন্দর ফেভিকন তৈরি করুন, যা আপনার ওয়েবসাইটের সৌন্দর্য অনেক বাড়িয়ে তুলবে।  ফেভিকন (Favicon) সাইজ দিতে হবে ১৬x১৬।

ফ্ল্যাশ ফাইল: সাইটে কোনও ধরণের ফ্ল্যাশ ফাইল না ব্যবহার করবেন না।  ফ্ল্যাশ ফাইলের পরিবর্তে আপনি ফ্ল্যাশ জিপ  (Zip) ফাইল ব্যবহার করতে পারেন।

পার্মালিংক: প্রতিটি পোস্ট বা পেজের যে লিংকগুলো থাকে, যেমন(Domain.com/ictmela) এখানে ictmela হচ্ছে Permalink অর্থ্যাত যেকোন পোস্ট করার সময় পোস্টের ক্যাটাগরি অনুযায়ী Permalink ব্যাবহার করবেন।

তো এই ছিল আজকের SEO বিষয়ে আর্টিকেল, সকলের সুস্বাস্থ্য কামনা করে শেষ করছি আল্লাহ হাফেজ

comment / Reply From

archive

please_select_a_date